প্রতিবছর বায়ু দূষণে ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু

বিশ্বজুড়ে প্রতিবছর বায়ু দূষণের ফলে ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। বিশ্বব্যাপী প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৯ জন শ্বাসের মাধ্যমে দূষিত বায়ু গ্রহণ করছে এবং বায়ু দূষণের কারণে প্রতি বছর আনুমানিক ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটছে। যাদের বেশির ভাগ মূলত নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশের। বায়ু দূষণের কারণে হৃদরোগ, স্ট্রোক, ফুসফুস ক্যান্সার এবং অন্যান্য শ্বাসজনিত রোগ সৃষ্টি হচ্ছে। যা অর্থনীতি, খাদ্য সুরক্ষা এবং পরিবেশকেও মারাত্মক হুমকির মুখে ফেলছে।

খুলে দেওয়া হয়েছে উহানের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

করোনা মহামারির শুরু হয়েছিল চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে। এই মহামারিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাও এটি। তবে এই মহামারির প্রকোপ বর্তমানে কিছুটা কমতির দিকে। চলতি সেপ্টেম্বর মাসের এক তারিখ থেকে সেখানকার সব স্কুল, কলেজ এবং ইউনিভার্সিটি খুলে দেওয়া হয়েছে। শহর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঝুঁকির মাত্রা পরিবর্তন হলে আবারও অনলাইন ক্লাস শুরু হবে। উল্লেখ্য যে, স্থানীয় সরকারসংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী সেখানে প্রায় ৩ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এবং শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ১৪ লক্ষ।

ভারতে মুসলিমদের জীবন দিতে হচ্ছে তুচ্ছ কারণে

ভারতের মুসলিমদের বিরুদ্ধে সহিংসতার ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তুচ্ছ কারণে বা কারণ ছাড়াই সেখানে প্রায়ই মুসলিমদের পিটিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। এ ধরনের ঘটনায় শীর্ষে রয়েছে বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশ রাজ্য। সম্প্রতি সেখানকার বরেলি জেলায় কয়েক দিনের ব্যবধানে দুই মুসলিমকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি এবং সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ নিজে একজন পুরোহিত। ফলে রাজ্যটিতে মুসলিমদের বিরুদ্ধে সহিংসতার ঘটনাগুলোর কোনো বিচারই হয় না। গত ৪ সেপ্টেম্বর সেখানকার বরেলি জেলায় ওয়াজেদ খান নামে ৩০ বছরের এক যুবককে চুরির অভিযোগে গাছে বেঁধে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। উক্ত ঘটনার দিন কয়েক আগে এই বরেলিতেই ঘটেছিল একই রকম আরেকটি ঘটনা মহিষ চোর সন্দেহে শাহরুখ নামে ২০ বছরের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা। সেই ঘটনারও কোনো বিচার হয়নি। গত কয়েক বছরে ভারতজুড়ে গরু চুরি ও পাচারের অভিযোগে মুসলিমদেরকে পিটিয়ে হত্যার অসংখ্য ঘটনা সংবাদ মাধ্যমগুলোতে এসেছে। কিন্তু এই অন্যায় ও অত্যাচার রোধে সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।