বায়ুদূষণে বিশ্বে বাংলাদেশ প্রথম

বায়ুদূষণের ক্ষেত্রে সবচেয়ে দূষিত শহরগুলোর অবস্থান দক্ষিণ এশিয়ায়। সহজ করে বললে ভারতের দিল্লি, বাংলাদেশের ঢাকা ও আফগানিস্তানের কাবুল বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহর। আর যদি দেশের কথা বলা হয়, তাহলে বিশ্বে বায়ুদূষণে বাংলাদেশ প্রথম। এরপর অবস্থান পাকিস্তান, ভারত ও আফগানিস্তানের। সুইজারল্যান্ডভিত্তিক দূষণ পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা আইকিউ এয়ারভিজুয়্যাল এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ৩০টি শহরের মধ্যে ২২টি ভারতের। বাকি ৮টি শহর পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও চীনে অবস্থিত। বেইজিং এই তালিকার ১২২ নম্বরে। দিল্লির বাতাসে প্রতি ঘনমিটারে সূক্ষ্ম বস্তুকণার (পার্টিকেল ম্যাটার বা পিএম-২.৫) পরিমাণ ১১৩.৫ পিএম, ঢাকায় ৯৭.১ ও কাবুলে ৬১.৮। যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই হুমকিস্বরূপ। কারণ প্রতি ঘনমিটারে পিএমের স্বাভাবিক মাত্রা ১ থেকে ১২ পর্যন্ত। সবচেয়ে দূষিত দেশের তালিকায় গড়ে পার্টিকেল ম্যাটার বা পিএম-২.৫ এর পরিমাণ বাংলাদেশে ৯৮, পাকিস্তানে ৭৫, ভারতে ৭২, আফগানিস্তানে ৬২ এবং বাহরাইনে ৫৯। এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স অনুসারে পিএম-২.৫ এর স্কেলে ০-৫০ পর্যন্ত ভালো, মোটামুটি ও স্পর্শকাতর এই তিন ভাগে বায়ুকে ভাগ করা হয়েছে। এরপর ৫০ থেকে ১৫০ পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর, ১৫০-২৫০ মাত্রাকে স্বাস্থ্যের জন্য খুবই অস্বাস্থ্যকর ও পরবর্তী মাত্রায় বায়ু দূষণকে বিপর্যয় হিসাবে ভাবা হয়।

গাজীপুরে একই পরিবারের ৬ জনের ইসলাম গ্রহণ

গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের কুলাঙ্গা গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের একই পরিবারের ৬ জন আনুষ্ঠানিকভাবে পবিত্র ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের কুলগঙ্গা মসজিদে জুম‘আর ছালাতের সময় মসজিদে এসে শত শত মুছল্লীদের সামনে পরিবারের ৬ সদস্য স্বেচ্ছায় ইসলাম গ্রহণ করেন। তারা পবিত্র কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন এবং পূর্বের নাম পরিবর্তন করে নতুন ইসলামী নাম ধারণ করেন। হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণকারী একই পরিবারের ছয় সদস্য হলেন- উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের কুলগঙ্গা গ্রামের অনিল চন্দ্র দাস, তার স্ত্রী শ্রীমতি রুনুবালা দাস, ছেলে ঝন্টু দাস, ঝন্টু দাসের স্ত্রী শ্রীমতি লতা রানী দাস, তাদের ছেলে জয়ন্ত দাস ও সৌরভ দাস।