মুসলিম বিশ্ব



বিশ্বের অন্যতম স্বাস্থ্যসম্মত শহর মদীনা


বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) সঊদী আরবের পবিত্র মদীনা নগরীকে বিশ্বের অন্যতম স্বাস্থ্যসম্মত শহর হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে। সংস্থাটির প্রতিনিধি দল শহরটি পরিদর্শন করে জানায়, স্বাস্থ্যকর শহরের বৈশ্বিক মানদণ্ডের সবই এখানে বাস্তবায়ন আছে। নিরাপদ স্বাস্থ্যসম্মত নগর পরিসংখ্যানে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাকে ২২টি সরকারি সংস্থা, সামাজিক সংগঠন, দাতব্য সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবক দল সহায়তা করে। প্রসঙ্গত, পবিত্র মদীনা নগরীতে প্রায় ২০ লাখ মানুষ বসবাস করে। মনে করা হয় বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)-এর স্বাস্থ্যকর শহরের তালিকায় থাকা এটিই প্রথম জনবহুল শহর। ১৯৮৬ সালে প্রথম স্বাস্থ্যকর শহরের নাম ঘোষণা কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে বিশ্বে WHO ঘোষিত হাজারখানেক স্বাস্থ্যকর শহর আছে। মুহাম্মদ a অন্তত ১০ বছর এ শহরে কাটিয়েছেন।


বৃক্ষ দ্বারা আচ্ছাদিত হবে মসজিদুল হারাম প্রাঙ্গণ



সঊদী আরবের পবিত্র মক্কায় অবস্থিত মসজিদে হারাম প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপণের পরিকল্পনা নিয়েছে পবিত্র দুই মসজিদের পরিচালনা পরিষদ। পরিষদের প্রধান ড. শায়খ আব্দুর রহমান আল-সুদাইস এ পরিকল্পনা উন্মোচন করেছেন। জানা গেছে, পবিত্র কা‘বা প্রাঙ্গণে ছালাত আদায়কারী মুছল্লী ও হজ্জ করতে আসা মানুষদের জীবন মানোন্নয়ন ও দেশটির সরকারের ভিশন-২০৩০ বাস্তবায়নের জন্য এই বৃক্ষরোপণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। শায়খ সুদাইস জলবায়ু ও পরিবেশ পরিবর্তন রোধে টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য বেশ গুরুত্ব দিয়েছেন। এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশটির দূষণ ও তাপমাত্রা হ্রাস করে পরিবেশের উন্নয়ন করা হবে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার কাবার আশপাশের খালি এলাকায় বৃক্ষরোপণ করার মাধ্যমে পরিবেশবান্ধব করা হবে। প্রস্তাবিত পরিকল্পনাটি বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও পরিচালনাগত দিক থেকে গবেষণা করা হবে, যাতে করে কা‘বা প্রাঙ্গণে আসা মুছল্লীদের চলাফেরা বিঘ্নিত না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে।