সিরিয়ার অন্ধ হাফেযা যাহরার শিক্ষাব্রত


সিরিয়ার অন্ধ হাফেযা যাহরা দারজি উলুশ। বয়স মাত্র ১৫। সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি শরণার্থী শিবিরে বসবাস। প্রখর মেধা ও অনন্য যোগ্যতার কারণে সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নানা প্ল্যাটফর্মে তাকে নিয়ে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। স্বল্পবয়সী বালিকা হয়েও সে শিবিরের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পবিত্র কুরআন শিক্ষা দিচ্ছে। যাহরা চায় শিবিরের সব শিশু তার থেকে কুরআন শিখুক। সে লক্ষ্যে শিবিরের মন্দ পরিবেশের মধ্যেও শিশুদের একত্রিত করে তাজবীদসহ কুরআনের বহুমুখী পাঠদান চলছে। শরণার্থী শিবিরের যে পরিবেশে সে এবং অন্যান্য শিশু বেড়ে উঠছে, তা থেকে মুক্তি চায় যাহরা। সে এখনো বালিকা। মাদরাসায় পড়ার স্বপ্ন দেখে। তার ইচ্ছা অনেক বড় হয়ে শিক্ষকতা করবে। গত ২০১৯ সালের এক দাঙ্গায় সিরিয়ার মাআরাত পল্লী থেকে যাহরা সপরিবারে বাস্তুচ্যুত হয়ে আশ্রয় নেয় এই শরণার্থী শিবিরে। একই সঙ্গে ঘরবাড়ি, সহায়-সম্বল ও আত্মীয়-স্বজন সবাইকে হারায়। কিন্তু অদম্য ইচ্ছাশক্তি ও দুর্দান্ত আগ্রহ শিক্ষাগ্রহণ থেকে তাকে বিরত রাখতে পারেনি। ঘরে বসেই শুনে শুনে পুরো ৩০ পারা কুরআন মাজীদ মুখস্থ করেছে সে।