জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করালে ভারতে একজনও হিন্দু থাকত না : শেলডন

পূর্বের মুসলমান শাসকরা জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করালে বর্তমান ভারতে একজনও হিন্দু থাকত না। এমনটাই দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত বুদ্ধিজীবী ও ভাষাতাত্ত্বিক অধ্যাপক শেলডন পোলক। এর কারণ হিসাবে তিনি বলেছেন, মুসলিম শাসকদের প্রায় ১২০০ বছর ভারত শাসনের ইতিহাস রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে তারা চাইলে যা ইচ্ছা সবই করতে পারতেন।

কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ের অধ্যাপক শেলডন পোলক নিজেকে একজন ইয়াহূদী ব্রাহ্মণ হিসাবে পরিচয় দেন। সংস্কৃতিতে পারদর্শী এই অধ্যাপক হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মূর্তি ক্লাসিক্যাল লাইব্রেরি ইন্ডিয়া প্রকল্পের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। সম্প্রতি ভারতের রাজস্থান রাজ্যের জয়পুরে অনুষ্ঠিত সাহিত্য উৎসবে এসেছিলেন তিনি। সেখানেই পোলককে প্রশ্ন করা হয়, অনেকে বলেন ইসলামী আক্রমণের পর ভারতবর্ষে সংস্কৃতের পতন ঘটে। শাসকদের দাপটে সবাই উর্দূ, ফার্সি শিখতে শুরু করেন। এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এসব সম্পূর্ণ বাজে কথা। আপনাদের বাংলার সুলতানী আমলেই কিন্তু নবদ্বীপ বা মিথিলা সংস্কৃতের ন্যায় চর্চা কেন্দ্র হয়েছিল। পোলক আরও বলেন, মুসলমান শাসকরা এ দেশে প্রায় ১২শ বছর রাজত্ব করেছিলেন। তখন তারা জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করালে এ দেশে ‘ভারতে’ একজন হিন্দুও অবশিষ্ট থাকত না। এর মানে ভারতীয় হিন্দুরা এতদিনে সবাই বিলীন হয়ে যেত। এমনকি তাদের উৎসাহ না থাকলে সংস্কৃতও টিকত না। তাই ধর্মের সঙ্গে ভাষার উত্থান-পতন গুলিয়ে কোনো লাভ নেই।