২০৭০ সালের মধ্যে ইসলাম বিশ্বের বৃহত্তম ধর্মভারত বৃহত্তম

দীর্ঘদিন ধরেই বিশ্বের বৃহত্তম ধর্ম খ্রীস্টান। তবে মুসলিম জনসংখ্যা এতো দ্রুত বাড়ছে যে, ২০৭০ সালের মধ্যে ইসলামই হতে পারে বিশ্বের বৃহত্তম ধর্ম। ভারত এখন হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হলেও তখন ভারত হবে বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ। তবে তখনও হিন্দুরাই ভারতে সংখ্যাগরিষ্ঠ থাকবে। খ্যাতনামা গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিউ রিসার্চ সেন্টারের এক গবেষণা প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে। গবেষণা প্রতিবেদনে ওপর ভিত্তি করে নিউইয়র্ক টাইমস ও হাফিংটন পোস্টসহ বিশ্বের বহু গণমাধ্যম যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে তাতে এমন সব তথ্যই উঠে এসেছে। গবেষণায় বলা হয়, ২০১০ সালে বিশ্বের খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা ছিল ২২০ কোটি। এটা তখনকার মোট জনসংখ্যা ৬৯০ কোটির প্রায় এক-তৃতীয়াংশ। এ সময় মুসলিম জনসংখ্যা ছিল ১৬০ কোটি যা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ২৩ ভাগ।

পিউ রিসার্চ বলছে, খ্রীস্টানদের সংখ্যাও বাড়তে থাকবে। তবে মুসলিম তরুণ এবং জন্মহার বৃদ্ধির কারণে ২০৫০ সালে খ্রীস্টান ও মুসলিম জনসংখ্যা হবে প্রায় সমান সমান (২৮০ কোটি বা মোট জনসংখ্যার ৩০ ভাগ করে)। এরপর ২০৭০ সালে খ্রীস্টানদের ছাড়িয়ে যাবে মুসলিম জনসংখ্যা।

যুক্তরাষ্টে খ্রীস্টানদের সংখ্যা কমবে। বর্তমানে দেশটিতে খ্রীস্টানদের সংখ্যা ৭৮.৩ শতাংশ। তবে ২০৫০ সালে কমে দাঁড়াবে ৬৬.৪ শতাংশে। বর্তমানে যুক্তরাষ্টে মুসলিমদের সংখ্যা ১ শতাংশের কম হলেও তা বেড়ে দাঁড়াবে ২.১ শতাংশে। অন্যদিকে ইয়াহূদীদের সংখ্যা ১.৮ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়াবে ১.৪ শতাংশে।

২০১০ সালে বিশ্বের ১৫৯টি দেশই ছিল খ্রীস্টান প্রধান। ২০৫০ সাল নাগাদ এই সংখ্যা আটটি কমবে। এর মধ্যে রয়েছে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বের মুসলিম প্রধান দেশের সংখ্যা আরও দু’টি বেড়ে দাঁড়াবে ৫১টিতে। নাইজেরিয়া ও মেসিডোনিয়া হবে মুসলিম প্রধান দেশ। এমনটাই দাবী গবেষণা প্রতিবেদনটির।