আকাশে উড়ে বিদ্যুৎ বানাবে ঘুড়ি


নরওয়ের একটি কোম্পানি এমন এক ডিজিটাল ঘুড়ি তৈরি করেছে যা বাতাসে ওড়ার সাথে সাথেই বিদ্যুৎ উৎপন্ন করবে। এটি দেখতে সাদা লম্বাটে প্লেনের মতো। আছে দুটি ব্যাটারিচালিত পাখা। এই ঘুড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের নাম কাইটমিল। প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র থমাস হার্কলাও জানান, বাতাস থেকে শক্তি উৎপাদনের এ পদ্ধতিকে গতানুগতিক টার্বাইনগুলোর চেয়ে আরো কার্যকর করা হবে। ঘুড়িটি ব্যাটারির সাহায্যে উড্ডয়নের পর আকাশে উড়তে থাকে। এরপর বাতাসের সাহায্যে ভেসে বেড়ায়। নাটাইয়ের মতো একটা যন্ত্রে সুতোর মতো থাকে তার। সেই তারের টানেই আকাশে উড়ে বেড়ায় ঘুড়ি। আকাশে ওড়ার পর সেই তারে টান পড়ে। ফলে চাকাটি ঘুরতে শুরু করে। সেই চাকাটি ঘুরতে ঘুরতেই বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে। উইন্ড টার্বাইন বা বায়ুকল মূলত এমন একটি ঘূর্ণায়মান যন্ত্র যা বাতাস থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে। অনেক আগে থেকেই এই পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হয়ে আসছে। এতে প্রচুর পরিকাঠামোর প্রয়োজন হয়। কিন্তু এই নতুন ঘুড়ি খুব অল্প সরঞ্জামেই বানানো যায়। জায়গা ও খরচ দুটিই কম। পরীক্ষামূলকভাবে এটি ওড়ানো হয়েছে নরওয়েতে। তাতে দেখা গেছে, ঘুড়িটি একটি বা দুটি বাড়ির জন্য পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ উৎপন্ন করতে সক্ষম। তবে কোম্পানিটি আরো বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদনের চিন্তা করছে। যাতে করে একসাথে ৭০টি বাড়ির জন্য বিদ্যুৎ উৎপন্ন করতে সক্ষম হয়। প্রতিষ্ঠানটি আশা করছে ২০৩০ সাল থেকে এ ঘুড়ির ব্যাপক ব্যবহার শুরু হবে।